বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. দেওয়ান নুরুল হোসেন চঞ্চল-কে “স্বাধীনতা পুরষ্কার (মরনোত্তর)” প্রদানের জন্য আবেদন

আব্দুল বাছিত টুটুল:: মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, স্বাধীনতা উত্তর সিলেট জেলা আওয়ামিলীগ এর সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ছাত্রলীগ এবং যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি,যুবলীগ প্রতিষ্ঠাতা কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য মরহুম ডা. দেওয়ান নূরুল হোসেন চঞ্চল (আমাদের প্রিয় চঞ্চল ভাই) ছিলেন এ অঞ্চলের মাটি ও মানুষের নেতা।জাতির পিতার আদর্শে উজ্জীবীত হয়ে নিজেকে সবসময় বিলিয়ে দিয়েছেন জনগণের কল্যাণে। ষাটের দশকের শুরু থেকেই তিনি এ অঞ্চলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রচারে নিয়োজিত হন এবং মুক্তিযুদ্ধ কালে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে যুদ্ধ সংগঠন ও পরিচালনায় অসাধারণ অবদান রাখেন। বঙ্গবন্ধুর অত্যন্ত প্রিয় ‘চঞ্চল’ ১৯৮৪ সালে মাত্র ৪৫ বৎসর বয়সে ইন্তেকাল করেন।(ইন্নালিল্লাহি … রাজিউন)। আমরা চঞ্চল ভাইয়ের আত্মার শান্তি কামনা করি এবং স্বাধীনতা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য উনাকে মরনোত্তর স্বাধীনতা পুরষ্কার প্রদানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আপার কাছে আকুল আবেদন জানাই।
তাঁকে স্বাধীনতা পুরষ্কার প্রদানের জন্য ইতিমধ্যে প্রখ্যাত সাংবাদিক- কলামিস্ট এবং অমর একুশে’র গানের গানের রচয়িতা (আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি) জনাব আব্দুল গাফফার চৌধুরী কর্তৃক সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। আমরা ঐ প্রস্তাব সমর্থন করছি। আমরা মনে করি মরহুম চঞ্চলকে এ সম্মাননা দেয়ার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে সম্মানিত করা হবে।

  • শওকত আলী (সভাপতি, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ)
    *আব্দুল বাছিত টুটুল (সাধারণ সম্পাদক, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ)

*সাইফুল আলম (সভাপতি, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা আওয়ামিলীগ)
*অ্যাডভোকেট শামীম আহমদ (সাধারণ সম্পাদক, দক্ষিন সুরমা উপজেলা আওয়ামীলীগ)

*মুস্তাকুর রহমান মফুর (সভাপতি, বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামিলীগ)
*আনহার মিয়া (সাধারণ সম্পাদক, বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামিলীগ)

জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু

লেখক: আব্দুল বাছিত টুটুল, সাধারণ সম্পাদক, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ

(ফেসবুক থেকে নেওয়া)