ফেঞ্চুগঞ্জে করোনা আক্রান্ত নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার

আসিফ ইকবাল ইরন :: সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে করোনা আক্রান্ত বলে ব্যক্তিবিশেষ ও এলাকার বিরোদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব তৈরি করা হচ্ছে। এতে ভুক্তভোগী পরিবার পড়ছে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে। এই নিয়ে সচেতন মহলে তৈরি হয়েছে বিরূপ প্রতিক্রিয়া।

ফেঞ্চুগঞ্জে প্রথম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রথম গুজব সৃষ্টি হয় গত ৭ এপ্রিল। এই  দিন কোনো তথ্যসুত্র না দিয়ে  “Md Jahid al hasan”  নামের একটি আইডি থেকে উপজেলার ছত্তিশ গ্রামে ৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়া হয়। যদিও খোজ নিয়ে দেখা যায় ৩ জন আক্রান্তের বিষয়টি সম্পূর্ন মিথ্যে ও গুজব। তীব্র সমালোচনার মুখে ঐ ব্যক্তি নিজের ভুল স্বীকার করে ফেসবুকে ক্ষমা চান।

দ্বিতীয় গুজব সৃষ্টি হয় ২৭ এপ্রিল। ওই দিন  “বাংলাদেশ  যুবলীগ” নামে একটি আইডি থেকে উপজেলার ইলাশপুর গ্রামের বিশিষ্ট মুরব্বী  তুরাব আলী করোনায় আক্রান্ত বলে তার ছবি সহ ফেসবুকে প্রচার করা হয়। এই সময় তার পরিবার থেকে একে মিথ্যে ও গুজব বলে প্রতিবাদ জানানো হয়।

ফেঞ্চুগঞ্জে তৃতীয় গুজব রটনা করা হয় গতকাল বুধবার( ৩ জুন) উপজেলার খিলপাড়া গ্রামের বিশিষ্ট মুরব্বী ও  উত্তর কুশিয়ারা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সভাপতি নুরুল ইসলাম পংকী মিয়া করোনা আক্রান্ত বলে “Rifa Chowdhury” নামের একটি আইডি তিনি করোনা আক্রান্ত বলে প্রচার করা হয়। যদি এর সত্যতা পাওয়া যায়নি। পরে উত্তর কুশিয়ারা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সভাপতি নুরুল ইসলাম পংকী ফেসবুক লাইভে এসে একে মিথ্যে ও গুজব অখ্যায়িত করে এই গুজবকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবী জানান।

একই দিন খিলপাড়া গ্রামের মোহাম্মদ শফিক মিয়ার বড় ছেলে  সমস উদ্দিন করোনায় আক্রান্ত বলে “Saife Ahmed  ও Laki Aktar”  নামের দুটি ভিন্ন ভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে সমস উদ্দিনের কয়েকটি ছবি সহ ফেসবুকে করোনা আক্রান্ত ও তার বাড়ী লকডাউনের দাবী তোলা হয়। এই দুটি আইডি থেকে বিভিন্ন গ্রুপেও একই পোষ্ট করা হয়। বিষয়টি নজরে আসার পর পরিবার ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ফেসবুকে প্রতিবাদ জানানো হয়। যদি ফেসবুকে ব্যক্তি বিশেষের আক্রান্ত এই সব খবরের কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি।

এদিকে ফেসবুকে গুজব রটনাকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবার সহ নেটিজনরা। নেটিজনরা এইভাবে ব্যক্তিবিশেষের ছবি দিয়ে ফেসবুকে ভুয়া পোষ্ট প্রদানকারী দুস্কৃতিকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন।

এক ভুক্তভোগি পরিবারের সদস্য রিয়াজ উদ্দিন বলেন, ফেসবুকে আমার ভাই সমস উদ্দিনের বিষয়ে গুজব রটনায় আমরা বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়েছি। ফেসবুকে এইসব পোষ্ট দেখে বিভিন্ন জায়গা থেকে আমাদের স্বজনরা উদ্ভিগ্ন হয়ে ফোন দিচ্ছেন। যদি ও আমার ভাইয়ের করোনাভাইরাসের  কোনো লক্ষন নেই ও তার করোনা পরীক্ষা করা হয়নি।  তিনি আইনশৃংখলা বাহিনীর কাছে এই গুজব রটনাকারীদের বিরোদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান।

এই বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ফেঞ্চুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল বাশার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান বলেন, এই বিষয়ে আমার কাছে কোনো তথ্য নেই।

সৌজন্যে:দৈনিক একাত্তরের কথা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *